এস সি আর আই(SCRI) এর কাজ হচ্ছে  – বেইজিংয়ের আগ্রাসী রাজনৈতিক ও সামরিক আচরণের কারণে চীনের উপর নির্ভরতা হ্রাস করার জন্য ভারত, জাপান এবং অস্ট্রেলিয়া একটি ত্রিপক্ষীয় সাপ্লাই চেইন রেসিলিয়েন্স ইনিশিয়েটিভ (SCRI) চালু করার বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছে।

এই গ্রুপের জাপানের আগ্রহী কেন। জাপানে প্রস্তাবের প্রথম উদ্যোগ নিয়েছে। জাপানের অর্থনৈতিক বাণিজ্য ও শিল্প এখন অনেকগুলি ভারতে এসেছিল এবং উদ্যোগটি এগিয়ে নেওয়ার জন্য খুব জোর দিচ্ছে। টোকিও নভেম্বর মাসের মধ্যে এস সি আর আই(SCRI) চালু করার পক্ষে ছিল সূত্র জানিয়েছে।

এস সি আর আই ভারত এর আগ্রহ ভারত সরকার এই প্রস্তাবটি নিয়ে খুব গুরুত্বপূর্ণ সাথে নিয়ে চলছে। বিশেষ করে লাদাখে যখন চীনের সৈন্য অগ্রসর হয়ে যায় এর ফলে ভারত চীনের এই পদক্ষেপ নিয়ে ভারত ক্ষিপ্ত হয়ে গেছে।শনিবার প্রধানমন্ত্রী মোদির স্বাধীনতা দিবসের ভাষণের মূল বিষয়গুলির মধ্যে এই বিষয়টিও ছিল, যেখানে তিনি বলেছিলেন যে ব্যবসায়ীরা ভারতকে সম্ভাব্য “সরবরাহের চেনের কেন্দ্র” হিসাবে দেখা শুরু করেছে এবং এখন ভারতকেও অবশ্যই “বিশ্বের জন্য” তৈরি করতে হবে।

এস সি আর আই এর উদ্দেশ্য জাপানের প্রস্তাব হল ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরে অর্থনৈতিক পাওয়ার হাউস হিসাবে অনেকগুলো দেশ অংশীদারি হয় আর তাদের মধ্যে সম্পর্ক ও ভালো গড়ে উঠুক এবং বিদেশি প্রত্যক্ষ বিনিয়োগে আকৃষ্ট করা আরো ভবিষ্যতে এই গ্রুপে আশিয়ান দেশগুলোকে যুক্ত করা।

প্রথমত দ্বিপক্ষীয় সর্বোচ্চ নেটওয়ার্কগুলি তৈরি করা।উদাহরণস্বরূপ ভারত এবং জাপান একটি ইন্দো জাপান শিল্প প্রতিযোগিতা অংশীদারি রয়েছে যা ভারত জাপানের সংস্থাগুলি অবস্থান নির্ধারণের বিষয়ে কাজ করবে।জাপানের করোনাভাইরাস এর জন্য অর্থনৈতিক অনেক ক্ষতি হয়েছে ও তাদের ব্যবসাতে।এর ফলে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে ইতিমধ্যেই 2 বিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব দিয়েছে যে তাদের কোম্পানিকে যারা চীন কোম্পানি রয়েছে সেগুলো কে জাপানে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য।

বর্তমানে সুরক্ষা ও স্বচ্ছতার উদ্যোগের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া ও আমেরিকা এক বিরল পৃথিবীর উপগ্রহ গুলির জন্য একটি চিহ্ন সরবরাহ যে নামে পরিচিত। এরমধ্যে আমেরিকা অস্ট্রেলিয়া মধ্যে একটি উচ্চ আকাঙ্ক্ষিত চুক্তি হয়েছে।