আত্মমা-নির্ভার ভারত: ইতিহাস প্রমাণ পেয়েছে ভারত কিছু অর্জন করলে তার প্রতিজ্ঞা করলে তারা সর্বদাই মেনে চলে। এটি 130 কোটি ভারতীয়দের মন্তব্য যারা নিজেকে আত্মনির্ভর করে তুলবে। ভারত সম্পতি থেকে সব বিধিনিষেধ অপসারণ করে কৃষি ও কৃষি ক্ষেত্রে। আজকে আমরা আমাদের মহাকাশের রেস এর সরকারের হাতে উন্মুক্ত করছি। আমরা কখনও পি পি ই কিটস তৈরি করিনি, আমরা মুখোশ এবং ভেন্টিলেটর গুলি উৎপাদন খুব কম ছিল তবে আজ আমরা সব তৈরি করছি। বিদেশি প্রত্যক্ষণ বিনিয়োগ গত বছর থেকে 18 পার্সেন্ট বৃদ্ধি পেয়েছে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। আমরা নতুন বিপ্লব আনতে প্রাইস 7000 তৈরি বেশি প্রকল্প চিহ্নিত করা হয়েছে। আমি সর্বদা বলি ভারত যদি লক্ষ লক্ষ চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয় তবে এল 130 কোটি সমাধান রয়েছে।

নতুন শিক্ষানীতি / ডিজিটাল ভারত: ভারতের নতুন শিক্ষানীতি 21 শতাব্দীতে ভারতকে নতুন রুপ দেবে। এই শিক্ষানীতি দিয়ে ভারত বিশ্বের অন্যতম গবেষণা ও উন্নয়ন দেশ হিসাবে মনোনিবেশ করবে।জাতি লেনদেনের নতুন পদ্ধতি গ্রহণ করছে ডিজিটাল লেনদেন ইতিমধ্যে তিন লক্ষ কোটি টাকা  অতিক্রম করেছে। আগামী 1000 দিনের মধ্যে সারা দেশের গ্রামগুলিতে অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ করে দেওয়া হবে।

কভিড -১৯ ভ্যাকসিন / স্বাস্থ্য সেক্টর: বিজ্ঞানীরা করোনা ভাইরাসের টিকার জন্য কঠিন পরিশ্রম করছে। তিনটি ভারতীয় টিকা বিভিন্ন পর্যায়ে পর্যবেক্ষণ করছে।এই টিকা শেষ পর্যায় এর কাছাকাছি হয়ে গেলে আমরা এটিকে খুব তাড়াতাড়ি ঘোষিত করব এবং সেটিকে বন্টন করে দেওয়ার জন্য কাজ করব। আজ আমরা একটি জাতীয় ডিজিটাল স্বাস্থ্য মিশন চালু করছি আর এটি সম্পূর্ণ প্রযুক্তি ভিত্তিক হবে। প্রত্যেক ভারতে একটি স্বাস্থ্য আইডি কার্ড পাবে। আপনি যখনই কোন ডাক্তার বা ফার্মাসিতে জান তখন আপনার এই আইডি কার্ডের মাধ্যমে আয় লগইন করে সব রকম জাতির স্কেলে মাফ করা হবে।

জম্মু ও কাশ্মীরে / লাদাখ: সন্ত্রাসবাদ হোক বা সম্প্রসারণবাদ, ভারত উভয়ের পক্ষে দাঁড়িয়ে পরাজিত করছে। আমি জম্মু-কাশ্মীরের সমস্ত রকম তা কে ধন্যবাদ জানাই।লাদাখ এই পথে এগিয়ে চলেছে এবং কার্বন-নিরপেক্ষ হওয়ার দিকে মনোনিবেশ করছে। সিকিম যেমন জৈব রাষ্ট্র হিসাবে চিহ্নিত করেছে তেমনি লাদাখকে কার্বন-নিরপেক্ষ অঞ্চল হিসাবে গড়ে তোলার চেষ্টা চলছে।

জলবায়ু পরিবর্তন: ভারতজুড়ে দূষণের মাত্রা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে তার জন্য আমরা কাজ করছি। জলবায়ু পরিবর্তন আমাদের জন্য অত্যন্ত এক চিন্তার বিষয় সুতরাং আমরা আমাদের এগিয়ে নিতে এবং আমাদের মাথাপিছু কার্বন এর হ্রাস পেয়েছে তা নিশ্চিত করার জন্য আমরা পরিস্কার শক্তি এবং সৌর শক্তির দিকে মনোনিবেশ করছি।

পার্শ্ববর্তী দেশগুলির সাথে সম্পর্ক: ভারতের জন্য, প্রতিবেশীরা কেবল আমাদের সীমান্তকেই ভাগ করে নিই না, যারা আমাদের সাথে হৃদয়ের বন্ধন রেখেছেন তারাও। আজ ভারতের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। আমরা একসাথে কাজ করছি এবং একে অপরের প্রতি প্রচুর পারস্পরিক শ্রদ্ধা রয়েছে।

ডিফেন্স উত্পাদন: ভারত আজ প্রতিরক্ষা উত্পাদনে আত্ম-নির্ভার হয়ে উঠতে শীর্ষস্থানীয় অগ্রাধিকার। এখন পিস্তল এবং বন্দুক থেকে শুরু করে তেজদের মতো ট্যাঙ্ক এবং যুদ্ধবিমান, আর্টিলারি বন্দুক থেকে ক্ষেপণাস্ত্র পর্যন্ত সবকিছুই ভারতে তৈরি হবে।

আন্দামান ও নিকোবার দ্বীপপুঞ্জের সংযোগ স্থাপনে ফাইবার অপটিক ক্যাবল: এটি সেই দ্বীপগুলির বাসিন্দাদের জন্য উচ্চ-গতির ইন্টারনেট এবং অন্যান্য সুবিধা নিয়ে আসবে। আগামী এক হাজার দিনের মধ্যে লক্ষদ্বীপ দ্রুতগতির ইন্টারনেটের সাথেও সংযুক্ত হবে।