রেলওয়ে শুক্রবার বলেছে যে তারা গত বছর ৪৪ টি আধা-গতির ভান্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেনের টেন্ডার বাতিল করেছে।চেন্নাইয়ের ভারতীয় রেলপথের ইন্টিগ্রাল কোচ কারখানাটি এই ট্রেনটা কি বাতিল করেছে।

গত মাসে যখন এই টেন্ডারে দেখা হয় কে জিতছে তখন দেখে একটি চীনের যৌথ উদ্যোগ সংস্থা-সিআরসি পাইনিয়ার ইলেকট্রিক প্রাইভেট লিমিটেড 44 টি ট্রেনের সিটের মধ্যে 16 টি কোচ জিতছে। ট্রেনের সিটের জন্য বৈদ্যুতিক জিনিস এবং অন্যান্য আইটেম সরবরাহের জন্য ছুটি প্রতিযোগিতার মধ্যে একমাত্র বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে আত্মপ্রকাশ  করেছে।

জেভি চীন ভিত্তিক সিআরআরসি ইওংজি ইলেকট্রিক কোম্পানি লিমিটেড এবং দ্য গুরুগ্রাম ভিত্তিক পাইওনিয়ার ফিল-মেড প্রাইভেট লিমিটেডের মধ্যে গঠিত হয়েছিল ২০১৫ সালে।

জাতীয় ট্রান্সপোর্ট এই টেন্ডার বাতিল এর পিছনে কোন নির্দিষ্ট কারণ বলেনি।

আন্তর্জাতিক অনেকগুলো ট্রেন কোম্পানি ছিলো যেগুলো টেন্ডার নেইনি এর পিছনে অনেকগুলো কারণ ছিল তার পিছনে।এরমধ্যে রেলিং স্টক ইন্ডাস্ট্রি এত বড় টেন্ডার কেন মিস করলো তা ব্যাখ্যা করার সময় তারা পত্রে বলেছে বা জানিয়েছে প্রযুক্তি সমস্যা গুলি নির্দেশ করা হয়েছিল সূত্র জানিয়েছে। তারা বলছে যে তারা আরো ভালো করে অংশগ্রহণ করার জন্য টেন্ডারে কিছু প্রযুক্তিগত সংশোধন চেয়েছিল।

বান্দে ভারত ট্রেন গুলি চেন্নাই ভিত্তিক ইন্টিগ্রাল কোচ কারখানায় তৈরি হয় আর এই ট্রেনগুলি বৈদেশিক এ চলে।আইসিএফ গত বছর ডিসেম্বর মাসে একটি টেন্ডার বের করেছিল এবং জুলাই মাসে খোলা হয়েছিল কিন্তু এবার নিয়ে তৃতীয় বার টেন্ডার বের করা হলো।

আইসি বলেছিল বন্দে ভারতের জন্য নতুন করে 44 টি ট্রেনের সেট এর টেন্ডার দেওয়া হবে এবং 2021 এর মধ্যে এর কাজ শুরু হবে।আর এটি সময় নিতে পারে প্রায় সাড়ে 6 বছরের মতো।

এর আগে বান্দা ভারত এর যখন 18 টি টেন এর টেন্ডার দেওয়া হয় সেটি তৈরি হয়ে এসেছিল প্রায় 18 মাসের মধ্যেই। এবং এর খরচা হয়েছিল প্রায় 100 কোটি টাকার মতো। এটি দিল্লি থেকে বানা রসি এবং দিল্লি থেকে কাতলা এই রুটে ঝামেলামুক্ত পরিষেবা সরবরাহ করে আসছে। কিন্তু বাকি 44 টি কোচ বাকি অংশটি নিয়ে বিতর্ক হচ্ছে।

এই ট্রেনে যান্ত্রিক এবং বৈদ্যুতিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ সুরক্ষা এবং অন্যান্য ত্রুটি গুলির মধ্যে অভিযোগ উঠেছে। ফলস্বরূপ এটির দল থেকে শীর্ষ কর্মকর্তাদের স্থানান্তরিত করা হয়েছিল।