স্কাইরুট(skyroot) এরোস্পেস হল ভারতীয় এক বেসরকারি স্পেস সংস্থা। আর এটি হলো ভারতের প্রথম বেসরকারি কোম্পানির রকেট ইঞ্জিন তৈরি করেছিল আর সেটি টেস্ট করেছে। এনা রা চাইছেন ডিসেম্বর 2021 মধ্যে তাদের রকেট যেন নিক্ষেপ করা হয়ে যায়।

ইতিহাসটি তৈরি হয়েছিল ২০২০ সালের ৩১ মে, যখন একটি স্পেসএক্স মহাকাশযান দুটি মহাকাশচারী নাসা নভোচারীকে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে নিয়ে যায়, এই মাইলফলক সহ, মহাকাশ অনুসন্ধানে বেসরকারী অংশীদারিত্ব, এভাবে সরকারের একচেটিয়া ডোমেনের জন্য অগ্রসর হতে থাকে।

চীনের মধ্যে এখন অনেকগুলো স্পেস কম্পানি শুরু হয়ে গেছে যেমন আইএসপিস, লিংক স্পেস। লিংক স্পেস এখন দ্বিতীয় ব্যবহারকারীর যোগ্য রকেট এখন বানাতে মাস্টার হতে যাচ্ছে।

আমেরিকাতে যেমন বড় বড় কোম্পানি রয়েছে এক্সপ্রেসের তার মধ্যে হল স্পেস এক্স(spacex) আর ব্লু অরিজিন।

এই হিসাবের দিক থেকে ভারত এখনও অনেক পিছিয়ে রয়েছে। এখন পর্যন্ত ভারতের কোন বেসরকারি স্পেস কম্পানি একটি রকেট নিক্ষেপ পারিনি। আর এটি পরিবর্তন হতে পারে 2021 সালে।

এটি পরিবর্তনের সবথেকে বড় হাত হলো ইন স্পেস(IN-SPACe) এটির পুরো নাম হল ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল স্পেস প্রমোশন এন্ড অথোরাইজেশন সেন্টার। ভারতের প্রত্যেকটি বেসরকারি স্পেস কোম্পানিগুলো এই অথরিটি সাহায্য করবে।

অনেক বেসরকারি কোম্পানি এখন ইসরো কথা বলতে শুরু করে দিয়েছে ইসরো যতগুলো পরিকাঠামো তৈরি করে রেখেছে সেইগুলো তারা ব্যবহার করবে। ইসরো সবথেকে ভালো পরিকাঠামো হল তার রকেট লঞ্চ সাইট। এইসব একটা নতুন কোম্পানিকে বানাতে গেলে প্রায় 5 হাজার কোটি টাকা থেকে দশ হাজার কোটি টাকা খরচ হতে পারে।

স্কাইরুট এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নেই নিজে তারা যখন রকেট নিক্ষেপ করবে তখন কি তার সঙ্গে কোনো ধরনের স্যাটেলাইট থাকবে।

স্কাই রুট তৈরি করেছে বিক্রম সিরিজের রকেট। এখানে রয়েছে ডিআরডিও অনেক সাইন্টিস্ট ইসরো এর অনেক সাইন্টিস্ট ও আইআইটির অনেকগুলো সাইন্টিস্ট উলের তৈরি করেছে।

স্কাই রোড 12 ই আগস্ট যখন বিক্রম সারাভাই এর জন্মদিন ছিল 101 তম, বিক্রম সারাভাই হল ভারতের স্পেসের ফাদার বলা হয়। স্কাই রুট সেদিন তারা একটি রকেট টেস্ট করে তার নাম হলো রিমান। এই ইঞ্জিনটি রামান নাম দেওয়া হয়েছিল নোবেল পুরস্কার বিজয়ী সিভি রামান। এই রকেট এটি হলো পুরোপুরিভাবে থ্রিডি প্রিন্টেড রকেট। এটি একটি ইতিহাস ভারতের বুকে প্রথম কোন বেসরকারি কোম্পানি একটি রকেট বানিয়ে তাকে দেখিয়েছে।

বিক্রম রকেট ওজন নিয়ে যেতে পারে প্রায়ই 500 কেজির মতো।

এরপরে চেন্নাই থেকে আরেকটি স্টার্টআপ বের হয়েছে তার নাম হলো অগ্নিকুল কসমস বলেছে তারা ও একটি রকেট লঞ্চ করবে 2022 এ আর এরাও ইসরো কাছে সাহায্য নেবে।

website: https://skyroot.in/